সোমবার, ৫ এপ্রিল, ২০২১

যুব সমাজ আজ কিভাবে ধ্বংসের পথে- Ajker-bd24

যুব সমাজ আজ কিভাবে ধ্বংসের পথে- Ajker-bd24


Ajker-bd24.info
 

যুব সমাজ আজ কিভাবে ধ্বংসের পথে - ajker bd24


প্রেম করা কোনো খারাপ ব্যাপার না- 

সমাজে আজ একটি কমন ব্যাপার হলো গার্লফ্রেন্ড বয়ফ্রেন্ড মানে প্রেমিক প্রেমিকা,তবে প্রেমের নামে অশ্লীলতা মোটেও গ্রহণ যোগ্য নয়,আজকাল প্রেম করলে অশ্লীলতা করতেই হবে এমন একটি ট্রেন্ড হয়ে গেছে।প্রেমের নামে আজকাল রাস্তা-ঘাটে, পার্কে, এবং রেস্টুরেন্ট সহ বিভিন্ন জনবহুল ও জনশুন্য স্থানে অশ্লীলতা করে বেড়াচ্ছে আজকের যুবক যুবতীরা।

তাদের মা বাবার জান্তে অজান্তেই চলছে এসব কর্মকান্ড কারো মা বাবার এসবের কোনো খবর নেই এবং খবর রাখারও প্রয়োজন বোধ করেন না আবার কারো মা বাবা জেনে শুনেই বিয়ে করানোর উদ্দেশ্যে নিজের ছেলে মেয়েদের এসব অপকর্মে বাঁধা প্রধান করেন না।



Online news 


আজ এসব অশ্লীলতার ফলে একে অপরের থেকে ইন্টারেস্ট উঠে যাচ্ছে যার ফলে সৃষ্টি হচ্ছে প্রেমে ব্যার্থতা আর এই অসমাপ্ত প্রেমের শোকে আজকাল অনেক মেধাবী স্টুডেন্টরাও তাদের ছাত্র/ছাত্রী জীবনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। 


আরও পড়ুন ঃ স্বাধীন বাংলাদেশ আর স্বাধীন নেই




Bangla breaking news



অনেকেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছে,এভাবেই চলতে থাকলে যুব সমাজ ধংশের পথে অগ্রসর হবে।

আজকের যুব সমাজকে বাঁচাতে হলে অভিভাবকদের ছেলেমেয়েদের দিকে কড়া নজরদারি রাখতে হবে এবং ছেলে মেয়েরা যদি অপকর্মে লিপ্ত হয়ে থাকে তাহলে তাদের বুঝাতে হবে তারপরও যদি ঠিক না হয় তাহলে শাসন এর আস্রয় নিতে হবে।তবে সবচেয়ে উত্তম হলো ছোট বেলা থেকেই ছেলে মেয়েদের প্রতি নজর রাখা তারা কোথায় যাচ্ছে কি করছে কাদের সাথে চলাফেরা করছে। 

স্বাধীন বাংলাদেশ আজ আর স্বাধীন নেই- ajker-bd24

স্বাধীন বাংলাদেশ আজ আর স্বাধীন নেই- ajker-bd24


Ajker-bd24.info
 


স্বাধীন বাংলাদেশ আজ আর স্বাধীন নেই!

 

১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন দেশে পরিনত হয়েছিলো, কিন্তু কোথায় আজ স্বাধীনতা আজকাল আমাদের মা বোনেরা  রাস্তায় স্বাধীন ভাবে বের হতে পারে না ধর্ষণ হওয়ার ভয়ে।আজ দিন দিন ধর্ষণের উপক্রম এমন ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে যে এটি এদেশে একটি সাধারণ ব্যাপার হয়ে দারিয়েছে। 




Online current news


আজ ধর্ষণ করে পার পেয়ে যাচ্ছে ধর্ষকরা হচ্ছে না কোনো সুষ্ঠ বিচার জেলে যাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই টাকা এবং ক্ষমতার জোরে বেরিয়ে আসে ধর্ষকরা।তারপর আবার নেমে পরে আরেকটি ধর্ষণের উদ্দেশ্যে আরেকটি মায়ের বুক খালি করতে, স্বাধীন দেশের স্বাধীনতা আজ বিলুপ্ত প্রায়।যে দেশে নারীদের সুরক্ষিত জীবন যাপনের কোনো নিশ্চয়তা নেয় সে দেশকে কিভাবে স্বাধীন দেশ হিসেবে গণ্য করা যায়। 




Ajker-news


এদেশ স্বাধীন ছিলো ৭১-এ আজ আর নেয় আমাদের দেশ সম্পুর্ণ ভাবে তার স্বাধীনতা হারিয়ে ফেলেছে। আবারও সেই স্বাধীনতা ফিরিয়ে আনতে হলে এ দেশ থেকে গোরা থেকে উপরে ফেলতে হবে সকল ধর্ষককে পস্রয় দেওয়া যাবে না কোনো অন্যায়কে।তারপর যখন মা বোনেরা স্বাধীন ভাবে নিরভয়ে চলাচল করতে পারবে সেদিনই আবার স্বাধীনতা ফিরে পাবে এই দেশ এবং আবারো বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশ হিসেবে গণ্য হবে।


যুবসমাজ  আজ... 

টিকটক বিনোদন নয় অশ্লীলতার রাজ্য- ajker-bd24.info

টিকটক বিনোদন নয় অশ্লীলতার রাজ্য- ajker-bd24.info


 Ajker-bd24


টিকটক বিনোদন নয় অশ্লীলতার রাজ্য!



এখনের খুব জনপ্রিয় সর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম টিকটিক, যেখানে এদেশের যুবক যুবতী থেকে প্রায় সব বয়েসের ছেলে মেয়েরাই বিনোদনের উদ্দেশ্য ভিডিও তৈরী করে আপলোড করে থাকে।




Online Breaking news 


বিনোদনের উদ্দেশ্যে ভিডিও আপলোড করছে এতে কোনো সমস্যা নেয় কিন্তু সমস্যা হলো রাতারাতি  খ্যাতি পাওয়ার উদ্দেশ্যে তারা সকল লিমিট অতিক্রম করে ফেলেছে!দিনের পর দিন তা আরো জঘন্যতম পর্যায়ে পৌঁছে যাচ্ছে।সামান্য সেলেব্রিটি হওয়ার উদ্দেশ্যে ছেলে মেয়েরা আজ কাল ১৮+ স্পর্শকাতর ভিডিও বানাতেও দ্বিধা বোধ করছে না।

এমনকি নিজেদের অর্ধ নগ্ন ভিডিও অশ্লীল বাক্য ব্যবহার করতেও সংকোচ বোধ করছে না। শুধু একাই নয় অনেকজন যুবক যুবতী মিলে গ্রুপ করেও তৈরি করছে অশ্লীল সর্ট ভিডিও যা ডুয়েট নামে পরিচিত,তাদের লাজ লজ্জা এমন ভাবে লোপ পেয়েছে যা বলার ভাষা নেই।

 



Ajker-bd24


টিকটক আজ যুবক যুবতীদের অশ্লীলতা প্রকাশের প্লাটফর্ম হয়ে গিয়েছে,যা এখনের যুবসমাজকে অশ্লীলতার দিকে নিয়ে যাচ্ছে এবং দিনের পর দিন এর প্রভাব বেড়েই যাচ্ছে। যদি দ্রুতই এর কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হয় তাহলে শিগগিরই সামনের প্রজন্ম ধংশের ধিকে পতিত হবে এবং সমাজে অশ্লীলতার মাত্রা  দিনের পর দিন চুড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছাবে।


লকডাউনে শীতল চট্টগ্রাম 

রবিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২১

লকডাউনে  শীতল হয়ে গিয়েছে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা!

লকডাউনে শীতল হয়ে গিয়েছে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা!


 Ajker-bd24.info


লকডাউনে  শীতল হয়ে গিয়েছে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা! 


করোনা হঠাৎ  করে তীব্রভাবে বেড়ে যাওয়ায়  বাংলাদেশের  জনগণ আবার অনাকাঙ্ক্ষিত ভাবে ভীত হয়ে পরেছে।  প্রতি মিনিটে   এম্বুলেন্স এর বিকট শব্দ মানুষকে আবার ও মনে করিয়ে দিচ্ছে করোনার  মহা-থাবার  কথা।  যদিও শীতকালে করোনা ভাইরাস বাড়ার কথা ছিল কিন্তু উল্টা ঘটনা ঘটল৷  গরম কালে ভাইরাস  আহামরি  ভাবে ছড়িয়ে পরেছে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি অঞ্চলে অঞ্চলে। 




ajker-bd24


সাধারন মানুষ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবার।  সরকারি কমর্তাদের জন্য এসেছে এই লকডাউন।  তাদের  স্বাস্থ্য ঝুঁকি ছাড়া খাবার যোগানোর কোন  চিন্তা নেই।  কিন্তু যারা খেটে খাওয়া মানুষ তাদের কি হবে?

তাদেরও বা কি হবে  যারা  কারখানায়  খেটে খায়? 

কারখানা ছুটি হলে প্রায় ৫০০ মানুষ কোনরকম  স্বাস্থ্যবিধিনিষেধ না মেনেই একে অপরের গায়ে ধাক্কা-ধাক্কি করে বাসায় ফিরে। সরকার এ ব্যাপার এ  সচেতন  নয়। 



Chittagong  news 



স্কুল- কলেজ খুলছে না করোনার হবে ছাত্র-ছাত্রীদের অথচ অনেক শিক্ষার্থীদের বাবা এ বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহে কাজ করছে। 

 অনেকের   অভিবাবক  কারখানায়  কাজ করছে তারাও তো দিন শেষে কাজ-কর্ম  সেরে বাসায় ফিরে!  তবে এ ক্ষেত্রে কি তাদের দ্বারা সন্তানদের আক্রান্ত  হওয়ার সম্ভাবনা  নেই? দিন - মুজুর,  রিকশা চালক, সবজি বিক্রেতা তারা কি মানুষ নন?  তাদের ক্ষেত্রে লকডাউন কি প্রযোজ্য  নেই? চট্রগ্রামের  হাসপাতালে  ICU  বিভাগ খালি নেই। রয়েছে অক্সিজেনের স্বল্পতা।   তাছাড়াও  ICU এর একদিনের খরচ বাবদ প্রায় ৬৫ হাজার টাকা পড়ে সেই টাকাই বা কি করে জোগার করবে দেশের নিম্নবর্গের মানুষেরা।  সরকারের উচিত নিম্নবিত্ত স্তরের মানুষদের জন্য ফ্রিতে  হাসপাতাল  বরাদ্দ দেওয়া। 


করোনা সংক্রমণ এ চট্টগ্রাম ৩ নম্বরে। বেশি আক্রান্ত  হচ্ছে  তরুণরা।  সবাই কে সচেতন  থাকার  আহবান  জানিয়েছেন  প্রধান মন্ত্রী  শেখ হাসিনা।


টিকটকে অশ্লীলতা 

করোনার ফলে অশিক্ষিত নাগরিকের সংখ্যা বৃদ্ধির সম্ভাবনা!

করোনার ফলে অশিক্ষিত নাগরিকের সংখ্যা বৃদ্ধির সম্ভাবনা!

Ajker-bd24.info


 

করোনার ফলে অশিক্ষিত নাগরিকের সংখ্যা বৃদ্ধির সম্ভাবনা!


করোনা আসার পর থেকে বাংলাদেশের অনেক ক্ষতি হয়েছে সকল ক্ষতির মধ্যে ভয়াবহ একটি ক্ষতি হলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আজ প্রায় এক বছর হয়ে গেলো এই এক বছরে কোনো রকম শিক্ষা কার্যক্রম হয় নি বললে চলে।এখনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার মত পরিস্থিতি হয়ে উঠেনি কারণ যে হারে করোনা বৃদ্ধি পাচ্ছে এই অবস্থায় যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু করা হয় তাহলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আকাশচুম্বী হবে।




কিন্তু এভাবেই যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বছরের পর বছর বন্ধ পরে থাকে তাহলে তা এখনের জেনারেশন এর জন্য ভয়াবহ ক্ষতির কারণ হয়ে দারাবে এ ব্যাপারে সরকার যদি দ্রুতই কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করে।তাহলে দিনের পর দিন অশিক্ষিত নাগরিকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে কারণ একটা মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত পারিবারের সন্তানের যদি দুই এক বছর যাবৎ শিক্ষাকার্যক্রম বন্ধ থাকে।





তাহলে একটা সময় গিয়ে ফেমিলির হাল ধরতে তার এমনিতেই লেখাপড়া বন্ধ করে দিতে হবে।শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে যত দ্রুত সরকারের কোনো না কোনো একটা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে অন্যথায় এদেশের এবং এদেশের সকল শিক্ষার্থীদের বিরাট ক্ষতি হয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


খাবারের সংকটে মরবে মানুষ

 এবছর করোনায় নয় খাবারের সংকটে মরবে মানুষ - ajker-bd24

এবছর করোনায় নয় খাবারের সংকটে মরবে মানুষ - ajker-bd24


 Ajker-bd24.info


এবছর করোনায় নয় খাবারের সংকটে মরবে মানুষ! 

লিখেছেন ঃ Tahon Sahariar 


এবার আবারো করোনা ভাইরাস জ্বিন পরিবর্তনের মাধ্যমে চালালো তার দ্বিতীয় ভয়াবহ হামলা,এবারের এই করোনার থাবায় যত মানুষ মারা যাবে তার চেয়ে অধিক বেশি মানুষ মারা যাবে অর্থ সংকটে খাদ্যের অভাবে।



 

                             Bangladesh news



গত বছর করোনার আক্রমণে যত মানুষ মৃত্যু বরণ করেছেন এবং এই করোনা আগমনের এক বছরে আমাদের দেশে যত ক্ষতি সাধন হয়েছে এবং অর্থ সংকট দেখা দিয়েছে।



তা এখনো কোনোভাবেই পরিপূর্ণ ভাবে কাটিয়ে উঠতে পারেনি আমাদের দেশ। এরইমধ্যে আবারও এই করোনার আক্রমণে বাংলাদেশ সরকার লোক ডাউন দিতে বাধ্য হয়ায়।



এদেশের মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত পরিবার গুলো অর্থের অভাবে ভয়াবহ বিপদের সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 



Ajker-bd

আমাদের দেশ উন্নয়নশীল দেশ,তাই এদেশের সকল মানুষকে করোনা যাওয়ার আগ পর্যন্ত খাওয়ানো কোনোভাবেই সম্ভব নয়।



এ দেশে করোনা আসার পর থেকে নিম্নব্যবসাহিদের অনেক কষ্টের সম্মুখীন হতে হয়েছে এবং  চাকরি পাওয়াতো বড়ই দুস্কর হয়ে পরেছে আর যারা চাকরিতে কর্মরত আছেন তাদের বেতন দিতে পারছে না বললে ভুল হবে,করোনার কারণ দেখিয়ে একদমই বেতন দিতে চাচ্ছেন না মালিকরা।



এরকমই চলতে থাকলে দেশে দারিদ্র্যের সংখ্যা দিন দিন বাড়তেই থাকবে আর যার ক্ষতি,পূরণ করতে আমাদের বছরের পর বছর লেগে যেতে পারে।


করোনার ফলে বাড়বে অশিক্ষিতার হার

মোদি বিরোধী আন্দোলন ছিলো নিছকই বোকামি - ajker-bd24.info

মোদি বিরোধী আন্দোলন ছিলো নিছকই বোকামি - ajker-bd24.info


Ajker-bd24.info


মোদি বিরোধী আন্দোলন ছিলো নিছকই বোকামি!

লিখেছেন ঃ Sazzad Ghanem


স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ২৫-এ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসায় বাংলাদেশের হেফাজত কর্মী ঘটায় তুমুল কান্ড!



Bangla news 


মোদি বিরোধী এই আন্দোলন ছিলো নিছকই বোকামি কারণ মোদি এই দেশে এসেছে মেহমান হিসেবে এবং সে তার কাজ শেষে তার দেশে ফিরে গিয়েছে।




কিন্তু হেফাজত কর্মীদের এই নির্বোধ কর্মকান্ডের জন্য আজ ভারতীয় ৩০কোটি মুসলমান বিপদের সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।



Ajker-bd24


এবং বাংলাদেশেও অনেক ক্ষতি সাধন হতে পারে। যেমন, মোদি এসে তো ঠিকই চলে গিয়েছে কিন্তু সে হেফাজত কর্মীর এরূপ বিরোধীতার ব্যাপারে জানতে পেরেছে।



এখন সে এদেশের মানুষের এরূপ আচরণে ক্ষিপ্ত হয়ে ভারতের মুসলমানদের উপর শুরু করতে পারে নির্মম নির্যাতন এবং বন্ধ করে দিতে পারে এদেশে পিয়াজ,রসুন ইত্যাদি যাবতীয় সামগ্রী পাঠানো।



যার ফলে ভারতীয় মুসলমানরা হতে পারে দেশহারা এবং এদেশে উল্লেখিত সামগ্রীর দাম হতে পারে আকাশছোয়া যা বাংলাদেশি দারিদ্র্যদের পক্ষে কিনে খাওয়া অসম্ভব হয়ে দারাবে।



এবং উক্ত কর্মকান্ডের জন্য ভারতের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক বিচ্ছেদেরও সম্ভাবনা রয়েছে, তাই হেফাজত কর্মীর কর্মকান্ডটিকে কোনো ভাবেই যৌক্তিক বলে গণ্য করা যায় না।

স্কুল খুলে দিলে বাড়বে করোনার হার